23

November

Photo Credit -https://goo.gl/F1HZuT

সবুজে ঘেরা সিজুক

চারপাশের সবুজ বনে ঘেরা লুকানোর ঝরনার অপূর্ব রূপ, যেন সবুজ বনের সাদা বুনোফুল। দুর্গমতা আর সবুজে ঘেরা সিজুক ঝরনা। পথে কাশফুলের বন, সবুজ আঁকাবাঁকা পথ। হঠাৎ বাঁক নেওয়া খরস্রোতা নদী।ভরা বর্ষায় গেলে নামতে হবে গলা পানিতে, তবে শুকনার সময় অ্যাডভেঞ্চারে জড়াতে পারেন অনায়াসে।

চারপাশের সবুজ বনে ঘেরা লুকানোর ঝরনার অপূর্ব রূপ, যেন সবুজ বনের সাদা বুনোফুল। দুর্গমতা আর সবুজে ঘেরা সিজুক ঝরনাপথে কাশফুলের বন, সবুজ আঁকাবাঁকা পথ। হঠাৎ বাঁক নেওয়া খরস্রোতা নদী।ভরা বর্ষায় গেলে নামতে হবে গলা পানিতে, তবে শুকনার সময় অ্যাডভেঞ্চারে জড়াতে পারেন অনায়াসে।

সিজুক ঝরনায় যেতে হয় খাগড়াছড়ি হয়ে। বৃষ্টিতে পথ চলাটা দ্বিগুণ কঠিন হয়ে ওঠে। জোক, কঠিন ট্রেইল, গলা সমান ঝিরির পানি পেরিয়ে দেখা সিজুক ঝরনা বেঁচে আছে প্রকৃতির বিশালতায়। দুর্গম বুনো পথে এমন অসংখ্যা ঝরনা, ঝিরি, চেনা-অচেনা বৃক্ষ প্রাণ যোগায় প্রকৃতিতে।

পিচ ঢালা রাস্তা পেরিয়ে পা বাড়ালাম বুনোপথে। সবুজে ঘেরা পথ বেয়ে পাহাড়ে, সময় বাচাঁতে পা চালাচ্ছি দ্রুত গতিতে। জুমের ট্রে্ইল ধরে পা ফেলছি। সরু রাস্তা ঘন জঙ্গলে ঢাকা, জোঁকের খুব উৎপাত জুম ট্রেইলে।

ট্রেইল থেকে দাঁড়িয়ে থেকে যতদূর দেখা যায় কেবল সবুজে ঢাকা উপত্যকার বন। বনের শিখর জুড়ের সাদা মেঘের্‌ আনাগোনা। বর্ষায় পাহাড়ের সাধারণ রূপের সবটুকু ছিল সিজুক ট্রেইলে।

বণ্যপ্রানী থেকে জুম চাষকে রক্ষা করার জন্য পাহাড়ের মাঝখানে জুম ঘর বানান চাষীরা।

উঁচুনিচু রাস্তা, বাঁশ বনে ঘেরা ট্রেইলের পা চালানো বেশ কঠিন। খাড়া পাহাড়ে বেয়ে নামতে গিয়ে আঘাত পেয়েছে অনেকে। ট্রেইলে ছেড়ে নিচে নামতেই শুরু হয় পাহাড়ি ঝিরি, প্রায় গলা সমান পানি। বেশ কিছুটা পথ গলা পানি দিয়ে সামনে অগ্রসর হলাম। সুনসান নীরবতায় পুরো ট্রেইলে।

পাথুরে পাহাড় বেয়ে নিচে নামতেই ঝরনার বিকট শব্দ। অনেক দূর থেকেই শোনা যাচ্ছিল ঝরনা ধ্বনি। কাছে যেতেই এর বিশালতায মুগ্ধ সবাই।

প্রায় ৪০ থেকে ৫০ ফুট দীর্ঘ পানির স্রোত পাহাড় থেকে পাথর নেমে আসছে। ভরা বর্ষায় ঝরনার কাছে যাওয়া কঠিন ছিল। তীব্র গতির জলের স্রোতে গড়িয়ে পড়ছে ক্রমাগত। ঝরানার বিশালতা আর জলের স্রোত আমাদের কল্পনাকেও হারিয়েছে।

ঢাকা থেকে সরাসরি বাসে করে যেতে হবে খাগড়াছড়ি বা দিঘীনালা পর্যন্ত। খাগড়াছড়ি বা দিঘীনালা থেকে রির্জাভ চাঁন্দের গাড়ি নিয়ে সরাসরি নন্দরাম গ্রাম পর্যন্ত যাওয়া যায়। নন্দরাম থেকে পায়ে হেঁটে ঘুরে আসতে পারেন সবুজে ঘেরা সিজুক ঝরনা। পুরো ট্রেইলে সময় লাগবে প্রায় ৬ ঘণ্টা।

সিজুক ঝরনায় কোনো ক্যাম্পিং করা যাবে না। তাছাড়া ঝরনার আশপাশে কোনো থাকার মতো গ্রামও নেই। তাই থাকতে হবে দিঘীনালা বা খাগড়াছড়িতে। বর্ষায় গেলে অবশ্যই ভালো করে প্রস্তুতি নিয়ে যেতে হবে।

Posted In:    

Related Blogs

Amazing Sajek
  • Author: Jannatul Islam

Sajek is located in the verdant hills of Kasalong range of mountains amidst the serene and exotic beauty…

Shopping in Dhaka
  • Author: Jannatul Islam

Bashundhara City

লালবাগের ফুল বাগিচায়
  • Author: Jannatul Islam

লালবাগ কেল্লায় সবচাইতে আকর্ষণীয় এবং দর্শনীয়…

Beautiful Bangladesh
  • Author: Jannatul Islam

A country that is a diverse and intriguing mix of culture, tradition and unforgettable beauty is an…